জুলুমতন্ত্রের বিরুদ্ধে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে: নেজামে ইসলাম পার্টি


জাগো প্রহরী :
বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির জাতীয় সম্মেলনে রাজনৈতিক জাতীয় নেতৃবৃন্দ বলেছেন, দেশের স্বাধীনতা জনগণের মৌলিক অধিকার ও ইসলামী অধিকার। ইসলামী আকীদা বিশ্বাসের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। নাগরিকদের বাকস্বাধীনতা হরণ করা হয়েছে। পশ্চিমা সংস্কৃতি ও ব্রাহ্মণ্যবাদী চেতনা প্রতিষ্ঠার চক্রান্ত চলছে। তারা ইসলামী চেতনা মুছে দিতে চায়। নাস্তিক্যবাদী রাষ্ট্র বানানোর ষড়যন্ত্র চলছে।

জাতীয় নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, দেশে জুলুমতন্ত্র চলছে। খুন ঘুম অত্যাচার নির্যাতনে দেশের জনগণ অতীষ্ট।দেশটা লুটের দেশের পরিণত হয়েছে। ভোটের অধিকার নেই। সর্বত্র হাহাকার। এই অবস্থা চলতে দেয়া যায়না। ঐক্যবদ্ধভাবে এই জালেমদের মুকাবিলা করতে হবে। জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, নারীর নির্যাতন বৃদ্ধি পেয়েছে। বিচার নেই। ন্যায় বিচার থেকে জনগণ বঞ্চিত, বিচারহীনতার সংস্কৃতি চলতে থাকলে রাষ্ট্রের কাঠামো থাকবে না।

তারা বলেন, মুসলিম প্রধান দেশে ইসলামী শিক্ষা বাধ্যতামূলক করতে হবে। নৈতিক চরিত্র ও মূল্যবোধ সম্পন্ন আদর্শ নাগরিক সৃষ্টির জন্য কুরআন সুন্নাহ ভিত্তিক ইসলামী কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০ টা থেকে রাজধানীর সেগুন বাগিচাস্থ বি এম এ মিলনায়তনে পার্টির আমির মাওলানা সারওয়ার কামাল আজিজীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের সহাসচিব মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদী, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর অব. সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহীম, নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না জমিয়তের নায়েবে আমির মাওলানা আবদুর রব ইউসুফী, খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের, নেজামে ইসলাম পার্টির উপদেষ্টা মাওলানা ফজলুর রহমান, জামায়াতে ইসলামীর যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা আবদুল হালিম, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মুস্তাফিজুর রহমান ইরান, খেলাফত আন্দোলনের নায়েবে আমির মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, জমিয়তের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম, মসজিদ মিশনের মহাসচিব ড. মাওলানা খলিলুর রহমান মাদানী।

নেজাম ইসলাম পার্টির নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র নায়েবে আমির মাওলানা আবদুল মাজেদ আতহারী, নায়েবে আমির আলহাজ আবদুর রহমান চৌধুরী, মাওলানা আব্দুল খালেক নিজামী, মাওলানা মুফতি মোহম্মদ আলী, মহাসচিব মাওলানা মুসা বিন ইজহার প্রমুখ।

সম্মেলন শেষে আগামী ৩ বছরের জন্য অধ্যক্ষ মাওলানা সারোয়ার কামাল আজিজীকে আমীর ও মাওলানা মুসা বিন ইজহারকে মহাসচিব করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ, ১৫ সদস্য বিশিষ্ট মজলিসে শুরা, ১১ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা পরিষদ ঘোষণা করা হয়।

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য