সংবিধানে পুলিশকে জনগণের হাত ভেঙ্গে দেয়ার অধিকার দেয়া হয়নি: মাওলানা মামুনুল হক


জাগো প্রহরী :
সংবিধানে জনগণের হাত ভেঙ্গে দেয়ার অধিকার পুলিশের নেই বলে মন্তব্য করেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক। জনগণের হাত ভেঙ্গে দিতে চাওয়া কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম আরাফাতকে বহিস্কারের দাবী জানান তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে ঢাকা জেলা ক্রীড়া মিলনায়তনে সংগঠনের ৩১ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত কর্মী সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, প্রজাতন্ত্রের দায়িত্বশীল হয়ে কিভাবে জনগণের হাত ভেঙ্গে দেয়ার হুমকি দেয় সেটা আমরা বুঝে আসে না। বাংলাদেশের সংবিধান মোতাবেক কোনো অপরাধীর (সে যতবড় অপরাধী হোক না কেনো) তার হাত ভেঙ্গে দেয়ার অধিকার পুলিশকে প্রদান করা হয়নি। বাংলাদেশে বিচার ব্যবস্থা রয়েছে। আদালত রয়েছে। বিচারকগণ বিচার করার পর অপরাধী সাব্যস্ত হলে তাকে শাস্তি প্রদান করা হবে। প্রয়োজনে ফাঁসি দিতে হলে ফাঁসি দিবে। যাাজ্জীবন কারাদণ্ড দিবে। কিন্তু কোনো পুলিশকে জনগণের হাত ভেঙ্গে দেয়ার অধিকার দেয়া হয়নি।

তিনি বলেন, যিনি জনসম্মুখে জনগণের হাত ভেঙ্গে দেয়ার হুমকি দেন তিনি বিচার ব্যবস্থার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছেন। বাংলাদেশের সংবিধানকে অপমান করেছেন। বাংলাদেশের রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ইস্যুর পর ইস্যু তৈরি করে আমাদের দৃষ্টিকে ভিন্নখাতে নেয়ার করার অপচেষ্টা কখনো সফল হবে না। আমরা কিছুতেই ভাস্কর্য ইস্যু ভুলে যাবো না। সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, যদি মসজিদের নগরীতে ইসলাম বিরোধী ভাস্কর্য তৈরির সিদ্ধান্তের উপর আপনারা অটল থাকেন (তাহলে আমরা হঠকারি সিদ্ধান্ত নিয়ে আইনকে নিজের হাতে তুলে নিবো না। কিন্তু ইসলাম বিরোধী অপতৎপরতার কারণে এদেশের ইসলামপ্রিয় জনতার সাথে স্থায়ী বৈরিতার সম্পর্ক তৈরি হবে।

সংগঠনের ঢাকা মহানগরীর সভাপতি মাওলানা রুহুল আমীন খানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের আমীর মাওলানা ইসমাঈল নূরপুরী, নায়েবে আমীর মাওলানা খুরশেদ আলম কাসেমী, সাবেক মহাসচিব মাওলানা ইউসুফ আশরাফ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন প্রমূখ।

জাগো প্রহরী/এফজে

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য