ভারতে জুয়ায় হেরে বউকে গণধর্ষণের অনুমতি, সম্মতি না দেয়ায় এসিড নিক্ষেপ


জাগো প্রহরী :
জুয়ায় হেরে নিজের বউকে তুলে দিতে হবে বন্ধুদের হাতে এক মাসের জন্য। বন্ধুরা তার স্ত্রীকে গণধর্ষণ করলে কোনভাবেই তিনি বাধা দিতে পারবেন না। এমন বাজি রেখেই বন্ধুদের সঙ্গে জুয়া খেলতে বসেছিলেন ভারতের বিহারের ভাগলপুর জেলার একজন বাসিন্দা। ওই জুয়ায় যথারীতি তিনি হেরে যান। শর্ত অনুযায়ী, বন্ধুদের হাতে তুলে দিতে চাইলে বেঁকে বসেন ৩০ বছর বয়সী স্ত্রী। অবাধ্যতার শাস্তিস্বরূপ স্ত্রীর গায়ে অ্যাসিড ঢেলে দেন ওই ব্যক্তি।

ভাগলপুরের মোজাহিপুর থানার পুলিশ কর্মকর্তা রাজেশ কুমার ঝা গণমাধ্যমকে জানান, গত রোববার সন্ধ্যায় অভিযুক্ত সোনু হরিজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছে। তার ভিত্তিতে পুলিশ গ্রেফতার করে। তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ঘটনার সংবেদনশীলতার কথা মাথায় রেখে আমরা দ্রুত অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছি। ঘটনার তদন্ত চলছে। বাকি অভিযুক্তদেরও দ্রুত গ্রেফতার করা হবে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত সোনু জানান, এক মাস আগে তিনি জুয়ার আসরে বন্ধুদের কাছে বাজিতে হেরেছিলেন। ‘প্রতিশ্রুতি’ অনুযায়ী একমাসের জন্য নিজের স্ত্রীকে বন্ধুদের হাতে তুলে দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু স্ত্রী যেতে রাজি হননি। তার স্ত্রীর বয়ানের ভিত্তিতেই পুলিশ তার স্বামীকে গ্রেফতার করে। বাজি হেরে বন্ধুদের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে স্ত্রীকে যে পীড়াপীড়ি করেছিলেন, তা স্বীকার করে নেন সোনু।

স্ত্রীর অভিযোগ, এই ঘটনার পর শাশুড়ি তাকে জোর করে মোজাহিপুরের বাড়ির একটি ঘরে আটকে রেখেছিলেন। ঘটনা যাতে জানাজানি না হয়, সেই ভয়ে শাশুড়ি ঘর থেকে তাকে বেরোতে দিতে চাননি। ঘরেই তাকে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছিলেন। শ্বশুরবাড়ির সকলের দৃষ্টি এড়িয়ে রোববার লোদিপুরে বাপের বাড়িতে আসার পরেই ঘটনার জানাজানি হয়।

এই ঘটনার পর ভুক্তভোগীর মা-বাবা মেয়েকে নিয়ে লোদিপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করতে গেলে তাদেরকে মোজাহিপুর থানায় পাঠিয়ে দেয়া হয়। সেখানেই মামলা দায়ের করেন ওই স্ত্রী। এই মামলার ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্ত সোনুকে গ্রেফতার করে।

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য