রাজধানীতে যাত্রীবেশে বাসডাকাত চক্র


জাগো প্রহরী : 
বাসে উঠে চালক-সহযোগীকে ফেলে দেয়া হয় রাস্তায়।এরপর নিজেরাই হয়ে যায় চালক ও সহযোগী। যাত্রীদের মালামাল লুট করে নামিয়ে দেয়া হয়। তারপর পথে পথে তোলা হয় নতুন যাত্রী। লুটে নেয়া হয় তাদের সবকিছু। সবশেষ নির্জন কোনো রাস্তায় বাস ফেলে রেখে পুরো দলের চম্পট দেয় চক্রের সদস্যরা। এভাবে রাজধানীতে চলে ডাকাতি। এরকম একটি চক্রকে গ্রেপ্তারের পর পুলিশ তাদের বলছে ভ্রাম্যমাণ ডাকাত দল।

১৮ ডিসেম্বর রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকা। যাত্রীবাহী একটি বাস। যার গন্তব্য ছিল আশুলিয়া থেকে বিমানবন্দর। হঠাৎ বিমানবন্দরে উঠেন  ১০ থেকে ১২জন যাত্রী। কিছুদূর যেতেই অস্ত্র বের করে বাসের নিয়ন্ত্রণ নেন তারা। চালক-হেলপার ও সুপারভাইজারকে হাত-পা মুখ বাঁধা হয়। কিছুদূর গিয়ে ফেলে দেয়া হয় রাস্তায়। তারপর শুরু হয় যাত্রী উঠানো। বাসে তুলে মালামাল লুট শেষে আবারো নামিয়ে দেয়ার পর সামনে গিয়ে ফের নতুন যাত্রী তোলা হয় বাসে। এভাবেই বাসটি চলে বিমানবন্দর থেকে কল্যাণপুর পর্যন্ত। সবশেষ বাসটি ফেলে রাখা হয় একটি পেট্রোল পাম্পে।

পুলিশ বলছে ওই রাতেই চক্রটি একইভাবে আশুলিয়া থেকে ঢাকা সাতক্ষীরা রুটের আরেকটি বাস ছিনতাই করে। যাত্রীদের মালামাল লুট, নতুন যাত্রী তুলে একই কায়দায় করা হয় ডাকাতি। এভাবে চলে ঢাকা থেকে মাওয়া পর্যন্ত। ডাকাতি শেষে আবার ঢাকায় ফেরার পর বাস ফেলা হয় তিনশ' ফুট এলাকায়।

বাসটি উদ্ধারের পর তদন্তে সন্ধান মেলে পুরো চক্রের। পুলিশের অনুরোধ এধরনের ঘটনা এড়াতে যাত্রীদের সচেতনতা জরুরি।

জাগো প্রহরী/এফজে

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য