'সভা-সমাবেশে বিধি নিষেধ জনগণের মৌলিক অধিকার হরণের সামিল'


জাগো প্রহরী :
বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের আমীর শায়খুল হাদীস আল্লামা ইসমাঈল নূরপুরী বলেছেন, ঢাকা মহানগরীতে পূর্বানুমতি ছাড়া সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করার নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে সরকার নিজেদের অস্তিত্বহীনতার পরিচয় দিচ্ছে। সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করে সরকার জনগণের মৌলিক অধিকার হরণ করছে। সভা-সমাবেশ, ঘরোয়া মিটিং, ওয়াজ-মাহফিল নিষিদ্ধ বা বিধি নিষেধ আরোপ করে সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবে না। ওয়াজ-মাহফিলে শব্দ দূষণ হয় বলে অপপ্রচার করা হচ্ছে। অথচ গান-বাজনার আওয়াজে এরচেয়ে বেশি শব্দ দূষণ হচ্ছে। উলামায়ে কেরামের মাহফিলে বাঁধা প্রদান করে ধর্মপ্রাণ মানুষের হৃদয়ে আঘাত করছে সরকার। রোববার (৬ ডিসেম্বর) দলীয় কার্যালয়ের বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের নির্বাহী কমিটির সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এক শ্রেণির মানুষ ইসলাম, মুসলমান এবং উলামায়ে কেরামদের বিরুদ্ধে বিষোদগার করছে। অবিলম্বে তাদের লাগাম টেনে ধরতে হবে। এসকল রাজনৈতিক সুবিধাভোগীদের কাজই হলো ইসলাম, আলেম উলামাদের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে নিজেদের সুবিধা আদায় করা। মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নামে দেশব্যাপী বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পাঁয়তারা করা হচ্ছে।

দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের পরিচালনায় নির্বাহী সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, নায়েবে আমীর মাওলানা রেজাউল করীম জালালী, মাওলানা খুরশিদ আলম কাসেমী, মাওলানা আলী উসমান, সংগঠনের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমীন, মাওলানা কোরবান আলী কাসেমী, মাওলানা আব্দুল আজীজ, মুফতী শরাফত হোসাইন, অফিস ও সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুর রহমান হেলাল, বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা মাহবুবুল হক, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা মুহসিনুল হাসান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য মাওলানা ইউসুফ আশরাফ, মাওলানা জসিম উদ্দীন, মুহাম্মদ আব্দুর রহীম, মাস্টার আনোয়ার আলী, মহানগর সভাপতি মাওলানা রুহুল আমীন খান ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আব্দুল মুমিন।

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য