র‌্যাব সদস্যদের পিটিয়ে যখম, চেয়ারম্যানপুত্রসহ কারাগারে ৩


জাগো প্রহরী :
র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) এক সদস্যকে পেটানোর দায়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হানিফ মুন্সির ছেলে আরিফুর রহমানসহ তিনজনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়। বাকি দুইজন হলেন, আশুগঞ্জ উপজেলার চরচারতলা ইউনিয়নের সবুর মুন্সির ছেলে আরিয়ান সারের চঞ্চল ও আড়াইসিধা ইউনিয়নের আফাজ উদ্দিনের ছেলে সালাহ উদ্দিন মিলন।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার (৯ ডিসেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-১৪ এর ভৈরব ক্যাম্পের সদস্য ল্যান্স নায়েক আব্দুর রউফসহ দুইজন সাদা পোশাকে আশুগঞ্জ বাজারের মুন্সি মার্কেটে যান। সেখানে এম. এম. টেলিকমের সামনে তাদের মোটরসাইকেল রাখেন। দোকান মালিক সালাহ উদ্দিন মিলন, আরিফুর রহমান, আরিয়ান সাবের চঞ্চলসহ কয়েক জন র‌্যারের ওই দুই সদস্যকে সেখান থেকে মোটরসাইকেল সরাতে বলেন।

র‌্যারের সদস্য বলে পরিচয় দিলে তারা রেগে গিয়ে র‌্যাবের সদস্যরা পরিচয় দেওয়ার পরও তাদেরকে মারধর করে ওই তিনজন। র‌্যাবের ঊর্ধ্বতনরা বিষয়টি জানার পর রাতে অভিযান চালিয়ে ওই তিনজনকে আটক করা হয়। এরপর র‌্যাব সদস্য আব্দুর রউফ বাদি হয়ে তিনজনের বিরুদ্ধে আশুগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

আশুগঞ্জ থানার ওসি জাবেদ মাহমুদ জানান, র‌্যাব সদস্যরা মামলায় ওই তিনজনকে আদালতে পাঠানোর পর বিচারক কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য