ব্যাপক সমালোচনার মুখে ক্ষমা চাইলেন সাকিব আল হাসান


জাগো প্রহরী :
সাধারণ মানুষের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া ও সমালোচনার মুখে ক্ষমা চাইলেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। ফেসবুক লাইভে পূজা মণ্ডপে যাওয়ার জন্যে দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চান এই খেলোয়াড়।

এর আগে এই ক্রিকেটারের এমন আচরণে ক্ষুব্ধ হয়েছেন বাংলাদেশের মত মুসলিম দেশের আপামর জনতা, ধর্মীয় বিষয়ে এই খামখেয়ালিপনায় চটেছেন স্বয়ং সাকিব আল হাসানের ভক্তরাও। সাকিবের ছবিতে ক্রস চিহ্ন ব্যবহার করে তাকে বয়কটেরও ডাক দিয়েছেন ধর্মপ্রাণ মানুষেরা।

এরপর গতকাল সোমবার রাতে এক ভিডিও বার্তায় ক্ষমা চান সাকিব। তিনি বলেন, ‘আমি প্রথমেই বলতে চাই যে আমি নিজেকে একজন গর্বিত মুসলমন হিসেবে মনে করি। আমি সেটাই চেষ্টা করি পালন করার।’

কালীপূজার অনুষ্ঠানের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘নিউজ, সোশ্যাল মিডিয়াসহ সব জায়গায় এসেছে যে, আমি পূজার উদ্বোধন করতে গিয়েছি। যা আমি কখনো যাইওনি কিংবা করিওনি। আসলে সেটি উদ্বোধন হয়েছে আমি যাওয়ার আগেই। সচেতন মুসলমান হিসেবে আমি এটা করবো না। তারপরও হয়তো ওখানে যাওয়াটাই আমার ঠিক হয়নি। সেটি যদি আপনারা মনে করে থাকেন তার জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। ক্ষমা প্রার্থী। আমি আশা করবো, আপনারা এটি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। এরকম কোনও ঘটনা যেন আর না ঘটে, সেটিও আমরা চেষ্টা করবো।’

সেলফি তোলার সময় ভক্তের ফোন ভাঙার বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘ফোন আমি কোনো ইন্টেনশনালি ভাঙেনি। যেহেতু করোনাকালীন স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার চেষ্টা করছিলাম আমি, যেহেতু ওখানে অনেক মানুষ ছিলো। এসময় একজন জনতা আমার উপর দিয়ে এসে ছবি তুলতে যায়, সে সময় তাকে সরিয়ে দিতে গলে আমার হাত লেগে তার ফোনটি পড়ে যায়। হয়তো পরে সেটা ভেঙেও গিয়েছে। তার ফোন ভাঙার জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত।’

এদিকে রবিবার রাতে ফেসবুকে ভিডিওতে মহসিন পরিচয় প্রকাশ করা এক যুবক সাকিবকে হুমকি দিয়ে বলেন, ‘সাকিব আল হাসান কয়দিন আগে দেশে আইছইন। কিছুদিন আগে তাইন হজে গেছিলা, তখন খুশি হইছিলাম। কিন্তু তাইন ইবার দেশে আইয়া আবার গেলাগি ইন্ডিয়াত পূজা উদ্বোধন করাত। ইটায় মুসলমানের কলিজায় আঘাত করছে। আমি ফাইলে তারে কোপাইয়া কোপাইয়া কাটিমু।’ এসময় তিনি একটি রামদা প্রদর্শন করেন।

ভক্তের সেলফি তোলা নিয়ে সাকিব আল হাসানের আচরণের সমালোচনাও করেন ওই যুবক। এছাড়া দেশে এসে সাকিব কোয়ারেন্টাইনে ১৪ দিন না থাকায় সেটার কথাও উল্লেখ করেন।

হুমকি দেওয়ার পর, ভোর ৬টা ৪ মিনিটে আবারো একটি লাইভ ভিডিওতে হাজির হন মহসিন। তবে রাতের উত্তেজিত ভিডিওর জন্য দুঃখ প্রকাশ করে সাকিব আল হাসানকে জাতির উদ্দেশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান।

এ সময় তিনি বলেন, কারো চাপে এখন এ ভিডিওটি নির্মাণ করছেন না বরং সাকিবকে একটা সুযোগ দেওয়ার জন্য এবং সাকিবের মতো বাকি সকল সেলিব্রেটিদের সঠিক পথে চলার বার্তা দিতে আবার লাইভ করছেন তিনি।

এসএমপির অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) এবিএম আশরাফ উল্লাহ তাহের বলেন, সাকিবকে প্রাণনাশের হুমকির বিষয়টি নজরে আসার পরপরই পুলিশ তাকে গ্রেফতার মাঠে নেমেছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ