মানবতার উপহাস: যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকির শহরে মেয়র নির্বাচিত একটি কুকুর!


জাগো প্রহরী :
সৃষ্টির সেরা মানুষ যখন তার সৃষ্টিকর্তা রাব্বুল আলামীন থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়, তখন শাস্তিস্বরূপ  কখনো কখনো আল্লাহ তাদের ওপর কুকুরের মতো চতুষ্পদ জন্তুকে চাপিয়ে দেন। কুকুরকে তখন তারা সন্তানের মর্যাদা দেয়। আশরাফুল মাখলুকাত হয়েও কুকুরকে নিয়ে জীবনযাপন করে, নিজ হাতে তার মলমূত্র পরিষ্কার করে দেয়।

এধরনের ঘটনায় সভ্যতা ও পরাশক্তির দাবিদার দেশগুলোর অসহায়ত্ব বড় করুণভাবে ফুটে ওঠে। নিজেরাই নিজেদেরকে তারা চতুষ্পদের চেয়েও অধম প্রমাণিত করে। তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকি অঙ্গরাজ্যে । এ যেন মানবতার সঙ্গে চরম উপহাস!

যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে চলছে ভোট গণনা। ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন ও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে চলছে জোর লড়াই। কোথাও চলছে ভোটগণনা জারি রাখার দাবি, কোথাও আবার ভোট গণনা স্থগিত রাখার বিক্ষোভ। গোটা আমেরিকায় ভোট গণনাকে ঘিরে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এর মধ্যেই ঘটল এ ঘটনা।

ছয় বছর বয়সী উইলবার, এক ফ্রেঞ্চ বুলডগ। আমেরিকায় আগামী চার বছরের জন্য এই কুকুরটিকে কেন্টাকি অঙ্গরাজ্যের র‍্যাবিট হ্যাশ শহরের মেয়র পদে নির্বাচিত করা হয়েছে। এখন থেকে শহরটির মানুষ এ কুকুরের নেতৃত্বে পরিচালিত হবে।

উইলবারের মুখপাত্র অর্থাৎ তার মালিক এমি নোল্যান্ড বলছেন, পাঁচশোরও কম অধিবাসী এই ছোট্ট শহরটিতে কখনই কোন মানুষকে মেয়র পদে বসানো হয়নি।

১৯৯০-এর দশকে একজন স্থানীয় বাসিন্দা প্রস্তাব করেন সেখানে মানুষ নয় কোন প্রাণীকে মেয়র নির্বাচিত করা হোক।

আর তখন থেকেই এই রীতি চলে আসছে বলে টিভি চ্যানেল এনবিসিকে জানান এমি নোল্যান্ড।

এমি নোল্যান্ড জানান, উইলবার নামের এ কুকুর তার নতুন দায়িত্বকে বেশ গুরুত্বের সাথেই নিয়েছে। (!) তবে নতুন মেয়রকে তার পেটে এবং কানে নিয়মিতভাবে আদর করতে হয়। (!) তাহলে সুষ্ঠুভাবে তার দায়িত্ব পালন করবে।

র‍্যাবিট হ্যাশে প্রথম যে কুকুর মেয়র নির্বাচিত হয় তার নাম ছিল গুফি। এরপর মোট পাঁচবার ঐ শহরে কুকুরের নেতৃত্ব মেনে চলছে বাসিন্দারা। সূত্র:বিবিসি ৷

জাগো প্রহরী/এফজে

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য