বিচারহীনতার সংস্কৃতিই খুন-ধর্ষণের অন্যতম কারণ : খেলাফত ছাত্র আন্দোলন


জাগো প্রহরী : দেশে বিচারহীনতার যে সংস্কৃতি চালু হয়েছে এর প্রতিফলন হিসেবে খুন-ধর্ষণ বৃদ্ধি পেয়েছে।  ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের লাগামহীন কর্মকান্ড এবং ক্ষমতার অপব্যবহারের কারণে দেশের মানুষ অতিষ্ট হয়ে পড়েছে। সাধারণ জনগণের কোথাও জীবনের নিরাপত্তা নেই।  বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশ খেলাফত ছাত্র আন্দোলনের সভাপতি মুফতি জাকির বিল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসাইন এসব কথা বলেন।

নেতৃদ্বয় বলেন, এমসি কলেজের চাঞ্চল্যকর ধর্ষণের ঘটনার মত কিছু ঘটনা প্রকাশ্যে আসার ফলে আসামীরা গ্রেফাতার হলেও তাদের বিচার হচ্ছে না। বিচার হলেও বিচার কার্যকর হচ্ছে না। কিছুদিন পর ধর্ষকরা ঠিকই প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছে।  এমনকি ধর্ষিতার পরিবারকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে তাদের মুখ বন্ধ রাখছে।  শুধু সিলেট নয় সারাদেশে যেখানেই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে সেখানে ধর্ষকদের আইনের আওতায় এনে প্রকাশ্যে সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করা হলে ধর্ষকরা আর ধর্ষনের সাহস পাবে না। 

তারা ধর্ষণের শাস্তি কোরআনের বিধানমতে জনতার সামনে প্রয়োগ করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

তারা আরো বলেন, দেশে নারী স্বাধীনতার নামে পর্দাহীনতা, নারী-পুরুষের অবাধ মেলামেশা, অশ্লীলতা, বেহায়াপনাকে প্রমোট করা হচ্ছে যা ধর্ষণের নিয়ামক রূপে কাজ করছে। অবাধ পর্নোগ্রাফির বিস্তার, বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের যথেচ্ছ ব্যবহার, বর্হি:বিশ্বের সাংস্কৃতিক আগ্রাসন ধর্ষনের মত অপরাধকে উস্কে দিচ্ছে। অথচ বিয়ের ক্ষেত্রে সরকারি প্রশাসন বিভিন্নভাবে মসজিদের ইমামদের হয়রানি করছে। খুন-ধর্ষণের মত সকল অপরাধ চিরতরে বন্ধ করতে কুরআনের বিধানমত বিচার ব্যবস্থার কোন বিকল্প নেই।

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য