বেফাক সংকট নিরসনে ওলামা সম্মেলন থেকে ১২ দফা প্রস্তাবনা



জাগো প্রহরী : কওমী মাদরাসাসমূহের সর্বোচ্চ শিক্ষাবোর্ড বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ-এর চলমান সংকট নিরসনে কওমী মাদরাসা কল্যাণ পরিষদের ব্যানারে ফুযালায়ে দারুল উলুম দেওবন্দের ব্যবস্থাপনায় ওলামা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

আজ ১ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) ঢাকার বি এম মিলনায়তনে সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর মাওলানা আবু জাফর কাসেমীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বক্তাগণ বেফাকের চলমান সংকট নিরসনে গুরুত্বপূর্ন বক্তব্য রেখছেন।

সম্মেলন থেকে বেফাকের বর্তমান সংকট নিরসনে ১২ দফা প্রস্তাবনা পেশ করা হয়েছে।

সকলের বক্তব্যের সমন্বয়ে সম্মেলন থেকে ১২ দফা প্রস্তাবণা পেশ করা হয়েছে। চলমান সঙ্কট উত্তরণে করণীয়’ শীর্ষক ওলামায়ে সম্মেলনের ঘোষণা সমূহ।

১. সকল কার্যক্রম পরিচালনায় বিদ্যমান গঠনতন্ত্র যথাযথ অনুসরণ করতে হবে।

২. বেফাক একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান অতএব বিভাগের সভাপতি ও মহাসচিব অবশ্যই অরাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হতে হবে।

৩. যেহেতু বেফাক একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রতিষ্ঠানের অতএব সবাইকে ধারণ করে সাথে নিয়ে চলতে পারেন এমন একজনকে বিভাগের শীর্ষপর্যায়ে নির্বাচিত করতে হবে।

৪. সভাপতি ও মহাসচিব সুনির্দিষ্ট মেয়াদকালের জন্য নির্বাচিত হতে হবে।

৫. বেফাক একটি শিক্ষা বোর্ড। অতএব বেফাকের শিক্ষাসূলভ চরিত্র বজায় রাখতে হবে।

৬. মহাসচিবকে সার্বক্ষণিকভাবে বেফাকের কাজ নিয়ে থাকতে হবে।

৭. বেফাকের সকল কার্যক্রমের স্বচ্ছতা এনে একে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হবে।


৮. বেফাকের সকল নিয়োগে স্বচ্ছতা আনতে যথার্থ নিয়োগ বিধি প্রণয়ন করতে হবে।

৯. বেফাকের পরীক্ষার ফলাফল কার্যক্রমে দক্ষতা বৃদ্ধিতে পদক্ষেপ নিতে হবে।

১০. সরকারি হস্তক্ষেপ মুক্ত রেখে জাতির আকাঙ্ক্ষার যথাযথ প্রতিফলন ঘটাতে হবে।

১১. উত্থাপিত অভিযোগ সমূহ যথাযথ তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

১২. বেফাকের বার্ষিক আয়-ব্যয়ের হিসাব অন্তর্ভুক্ত প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রধানের নিকট পেশ করতে হবে।

সম্মেলনে উপস্থিত থেকে বিভিন্ন মতামত পেশ করেছেন –বেফাকের সহকারী মহাসচিব আল্লামা নুরুল হুদা ফয়েজী, জামিয়া ইমদাদুল উলুম ফরিদাবাদ মাদ্রাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস মুফতি ইমাদুদ্দীন, মিরপুর জামেউল উলুম মাদ্রাসার মুহতামিম মুফতি মো. আবুল বাশার নোমানী, জামিয়া মাহমুদিয়া বরিশাল মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা ওবায়দুর রহমান মাহবুব, আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ. খলিফা মাওলানা মুফতি ওমর ফারুক সন্দিপী,জামিয়া কারীমিয়া আরাবিয়া রামপুরার মুহতামিম মাওলানা মকবুল হুসাইন,জামালুল কুরআন মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা মুহাম্মদ এমদাদ, বিশিষ্ট আলেম মাওলানা সাদেক আহমদ সিদ্দিকী, গাজীপুর মাদ্রাসার মুফতি নুরুল ইসলাম,কেরানীগঞ্জের জামিয়া মাহমুদিয়া মুফতি মহিবুল্লাহ কাসেমী, তিলপাপাড়া মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা ইউনুছ আলী, জামিয়া তালিমিয়া মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা হাফিজুর রহমান সিদ্দীক,জামিয়া সাঈদিয়া ভাটারার মুহতামিম মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ,মারকাযুত তাকওয়া ইসলামিক সেন্টার মুফতি হাবিবুর রহমান মিসবাহ,মিরপুর জামিয়া আরাবিয়া খাদিমুল ইসলাম মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা ফয়সাল আহমদ যাকারিয়া, বিশিষ্ট আলেম মুফতি আহমদ আলী, মাদারীপুরের সিনিয়র আলেম মাওলানা আহমদ চৌধুরী, নরসিংদি জামিয়া এমদাদিয়া শেখেরচর মাদ্রাসার মাওলানা আশরাফ আলী,মুফতি আব্দুর রাজ্জাক কাসেমী, মুফতি হেমায়েতুল্লাহ কাসেমী,মুফতি কাওছার আহমদ প্রমুখ।

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ