মসজিদকে যারা অবৈধ বলার চেষ্টা করেছে তারাই অবৈধ: খেলাফত মজলিস


জাগো প্রহরী : খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের বলেছেন, তিতাস গ্যাস কোম্পানীর অবহেলা ও অব্যবস্থাপনার জন্য নারায়ণগঞ্জের মসজিদে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ বিস্ফোরণের জন্য দায়ী তিতাস গ্যাসের দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিহতদের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। আহতদের সরকারি খরচে সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।

আর এ ঘটনায় যারা মসজিদকে অবৈধ বলার চেষ্টা করেছে তারাই অবৈধ। কারণ মসজিদ ওয়াকফকৃত জায়গায় নির্মিত হয়েছে। মসজিদকে ‘অবৈধ’ বলার ধৃষ্টতার জন্য বিদ্যুৎ ও জ্বালানী প্রতিমন্ত্রীকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে। নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণে নিহত ও আহতদের মাগফিরাত কামনায় খেলাফত মজলিস ঢাকা মহানগরী আয়োজিত দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন ৷

আজ ১১ সেপ্টেম্বর (শুক্রবার) বাদ জুমা বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইটে ঢাকা মহানগরীর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক ডা. রিফাত হোসেন মালিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আজীজুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিলে তিনি একথা বলেন।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের যুগ্মমহাসচিব মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা তোফাজ্জল হোসেন মিয়াজী, অধ্যাপক মোঃ আবদুল জলিল, হাজী নূর হোসেন, ঢাকা মহানগরীর যুগ্মসম্পাদক সাহাব উদ্দিন আহমদ খন্দকার প্রমুখ।

মাহফিলে নারয়াণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণের জন্য প্রকৃতপক্ষে যারা দায়ী তাদের বিরুদ্ধে দুষ্টামূলক শাস্তি ব্যবস্থা করা, অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিহতদের পরিবারকে ৫০ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ প্রদান, সরকারী খরচে ক্ষতিগ্রস্থ মসজিদ মেরামত করে দৃুত নামাজের জন্য খুলে দেয়া, তিতাস গ্যাসসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থার অব্যবস্থাপণা ও দুর্নীতি বন্ধ করার দাবী জানানো হয়।

নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণে অগিন্দগ্ধ হয়ে নিহতদের মাগফিরাত ও আহতদের সুস্থতার জন্য বিশেষ দোয়া- মুনাজাত করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন সংগঠনের ঢাকা মহানগরীর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক ডা. রিফাত হোসেন মালিক ৷

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য