ধর্মভিত্তিক ছাত্র সংগঠন ঢাবিতে রাজনীতি করতে পারবে না: সনজিত


জাগো প্রহরী : ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক ছাত্র সংগঠনগুলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসে কার্যক্রম চালাতে পারবে না বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস। তিনি বলেছেন, ডাকসু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসে কিছু ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক সংগঠন অবস্থান করছে। সেসব রাজনৈতিক সংগঠনসহ জঙ্গী-ধর্ষক নুরকে ক্যাম্পাসে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করলাম।

রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে টিএসসির সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এমন মন্তব্য করেন তিনি। ঢাবি ছাত্রীসহ সাম্প্রতিক সময়ে সারাদেশে ঘটে যাওয়া ধর্ষণের ঘটনার বিচারের দাবিতে ক্যাম্পাসে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

সনজিত চন্দ্র দাস বলেন, কোন ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক সংগঠন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রাজনীতি করতে পারবে না। যদি তারা রাজনীতি করতে চাই, তাহলে আমাদেরকে মোকাবেলা করে রাজনীতি করতে হবে। আমি তাদেরকে বলে দিতে চাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন। সুতরাং এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কোন ধর্মভিত্তিক রাজনীতি চলবে না।

তিনি আরও বলেন, ছাত্রলীগের একজন কর্মী হিসাবে এসব ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক সংগঠনের প্রবেশ মেনে নিতে পারছি না। আমি তাদের ও তাদের পৃষ্টপোষকদের এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করছি। তাদেরকে যেখানেই দেখবেন, সেখানেই প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান রইল।

ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ বাংলার ছাত্র সমাজের প্রতিনিধিত্ব করে। স্বাধীনতাবিরোধী ছাড়া অন্য যেকোন নারী যদি নির্যাতনের স্বীকার হয়, নির্যাতনকারী সে যে রাজনীতি করুক না কেন আমরা তা সাথে সাথেই প্রতিহত করব।

ডাকসুর সদ্য বিদায়ী ভিপি নুরুল হক নুরকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আপনাকে যে মেয়েটি ভোট দিয়েছে তার পাশেই আপনি দাঁড়াননি। আপনি আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন। আপনার বিরুদ্ধে আমার কোনো ষড়যন্ত্র নেই। আমার সৌভাগ্য হত যদি আমি বাদী হয়ে মামলা করতে পারতাম৷

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ