শান্তি আলোচনা : ঝামেলা মিটিয়ে প্রস্তুত আফগান সরকার, তৈরি তালেবানও


জাগো প্রহরী : কাতারের রাজধানী দোহায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যে “আন্তঃআফগান শান্তি আলোচনা নিয়ে সম্পূর্ণ প্রস্তুত আফগান সরকার” এমনটাই জানিয়েছে আফগান সরকারের দপ্তর।

তবে তারা অভিযোগ করছে যে, তালেবান এখনও শান্তি আলোচনা নিয়ে প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে পারেনি। তাই বিষয়টি বিলম্বিত হচ্ছে। আফগান সরকারের দপ্তর থেকে আরও বলা হয়েছে যে, সরকারের ভেতরগত যে সমস্যাগুলো হয়েছিলো তা সমাধান করা হয়েছে।

তালেবান সম্প্রতি তাদের শান্তি আলোচনার জন্য মাওলানা আবদুল হাকিমের নেতৃত্বে ২১ সদস্যের আলোচনার দল ঘোষণা করেছে, সাবেক প্রধান আলোচক আব্বাস ইউসুফজাই এখন আবদুল হাকিমের সহকারী হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আফগান সরকারের মুখপাত্র সাদিক সিদ্দিকী বলেছেন “সকল সমস্যা সমাধান করে আমাদের প্রস্তুতি প্রায় সম্পূর্ণ। আমরা আশা করি যে তালেবানরাও তাদের প্রস্তুতি শেষ করে দিয়েছে যাতে আমাদের প্রতিনিধিরা (দোহায়) ভ্রমণ করতে পারে”।

সরকারি আলোচনাকারী দলের সদস্য আবদুল হাফিজ মনসুর বলেছেন, তারা আলোচনার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। “আমাদের কোনও সমস্যা নেই। প্রত্যেকেই দোহা সফরের জন্য প্রস্তুত। মনসুর বলেছিলেন, আমরা গত কয়েকদিন ধরে বিমানের জন্য অপেক্ষা করছিলাম, কিন্তু আমাদের বারবার বলা হয়েছে যে কাতারে তালিবানের প্রতিনিধি প্রস্তুত নয়।

বিষয়টির সাথে সম্পর্কিত একটি সূত্র বলেছে যে যুদ্ধবিরতি এবং একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের সম্ভাব্য দাবী আলোচনার পথ তৈরিটাই এখন মূল চ্যালেঞ্জ। তবে শান্তি আলোচনার জন্য নিযুক্ত হাই কাউন্সিলের মুখপাত্র ফারদিন খাইনুজ বলেছেন: “শান্তি আলোচনায় সংযুক্ত হাই কাউন্সিলের প্রধান সম্প্রতি ন্যাটোর সিনিয়র বেসামরিক প্রতিনিধি, জাতিসংঘের বিশেষ দূত, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত এর সাথে বৈঠক করেছেন এছাড়াও রাশিয়ার রাষ্ট্রদূতও শান্তি প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা করেছেন।

এছাড়াও আফগানিস্তানের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াইস বার্মাক বলেছেন – “আফগানিস্তানে যুদ্ধ ও শান্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা রয়েছে। আমরা আশা করি যে আমেরিকা তার রাজনৈতিক প্রভাব এবং সামরিক শক্তি নিয়ে আফগানিস্তানের মতো আঞ্চলিক দেশগুলিতে শান্তি নিশ্চিত করতে ভূমিকা রাখবে। যে আফগানিস্তানে শান্তির আগমন হওয়া উচিত।”

জাগো প্রহরী/গালিব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ