গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে আগের ভাড়া বহাল রাখতে হবে : ইসলামী আন্দোলন


জাগো প্রহরী: মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে আগের ভাড়া বহাল রাখার দাবি জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান। 

তিনি বলেন, করোনা সংকটের কারণে যে শর্ত সাপেক্ষে গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছিল, তার কোনোটাই মানছে না পরিবহন শ্রমিকরা। পুরানো পদ্ধতিতেই গদাগাদি করে তোলা হচ্ছে যাত্রী। পাশাপাশি বর্ধিত ভাড়া তো আছেই। ফলে একদিকে হুমকির মুখে রয়েছে জনস্বাস্থ্য, অন্যদিকে পকেট কাটা যাচ্ছে সাধারণ মানুষের। তাই অবিলম্বে সরকার নির্ধারিত এ বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে পূর্বের ভাড়া বহাল রাখতে হবে।

আজ শুক্রবার (১৪ আগস্ট) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তরের কার্যালয়ে আয়োজিত ঈদ পরবর্তী পুনর্মিলনী সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মাওলানা গাজী আতাউর রহমান বলেন, সরকার যাত্রী প্রতিনিধি বাদ দিয়ে মালিকদের নিয়ে বৈঠক করে এই সংকটময় মুহূর্তে জনগণের ওপর একচেটিয়াভাবে ৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়া চাপিয়ে দেয়। এ ঘোষণার পর পরই দেশব্যাপী চলাচলরত বাস-মিনিবাসের সঙ্গে লেগুনা, হিউম্যান হলার, টেম্পো, অটোরিকশা, প্যাডেলচালিত রিকশা, ইজিবাইক, নসিমন-করিমন, টেক্সিক্যাবসহ সব যানবাহনের ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যায়। এতে যাত্রী স্বার্থ চরমভাবে উপেক্ষিত হয়। 

তিনি বলেন, সাধারণ মানুষের কথা বিবেচনা করে অনতিবিলম্বে পূর্বের ভাড়া বহালের জন্য সরকারের তরফ থেকে নির্দেশনা আসবে বলে আশা করছি। অন্যথায় সাধারণ মানুষ আন্দোলনের জন্য রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ বলেন, করোনা সংকটে দেশের কর্মহীন ও আয় কমে যাওয়া সাধারণ মানুষের যাতায়াত দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। পাশাপাশি দেশের গণপরিবহনগুলোতে কোনো স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। এ পরিস্থিতিতে অনতিবিলম্বে স্বাস্থ্যবিধির নামে গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে দেশের প্রতিটি রুটে বর্ধিত ভাড়া আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে হবে। এক্ষেত্রে সরকারের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ এর সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সহকারী মহাসচিব আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক মুফতী হেমায়েতুল্লাহ, ঢাকা মহানগর সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব হারুন অর  রশীদ, জয়েন্ট সেক্রেটারি মাওলানা নুরুল ইসলাম নাঈম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মুরাদ হোসেন, দফতর সম্পাদক  ইঞ্জিনিয়ার গিয়াস উদ্দিন, সহ-দপ্তর সম্পাদক,  মুফতি নিজাম উদ্দিন অর্থ সম্পাদক, ডাক্তার মুজিবুর রহমান, সহ-অর্থ সম্পাদক  আলহাজ্ব খলিলুর রহমান, প্রচার সম্পাদক মুফতি মোঃ শরিফুল ইসলামসহ নগরের অন্যান্য দায়িত্বশীলবৃন্দ ৷

জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য