ফিলিস্তিনে অবৈধ দখলদারিত্ব শেষ না হওয়া পর্যন্ত ইসরাইলকে সমর্থন গ্রহণযোগ্য নয়: ওআইসি


জাগো প্রহরী : আন্তর্জাতিক ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা ওআইসির সেক্রেটারি জেনারেল ড. ইউসুফ বিন উসাইমিন বলেছেন, ওআইসি ফিলিস্তিন ও কুদস (জেরুজালেম) ইস্যুকে নিজেদের দলের কেন্দ্রিয় ইস্যু সাব্যস্ত করার নীতিগত অবস্থানে অটল রয়েছে। এই বিষয়ে ওআইসির অবস্থান হলো, ফিলিস্তিন আন্দোলনের ক্ষেত্রে ঐক্যবদ্ধতাই হলো শক্তি এবং সম্মিলিত পদক্ষেপের উপায়।

ওআইসির সকল সদস্য ফিলিস্তিন সমস্যার ইনসাফপূর্ণ সমাধান, ফিলিস্তিনের উপর ইসরাইলের অবৈধ দখলদারিত্বের সমাপ্তি এবং ফিলিস্তিনি জাতির সকল আইনি এবং স্বীকৃত অধিকার নিশ্চিতের প্রশ্নে ঐক্যবদ্ধ। এক বিবৃতিতে ইউসুফ ওসাইমিন বলেন, ওআইসি ফিলিস্তিন ইস্যু সমাধানের জন্য পরামর্শ ও দিকনির্দেশনা অব্যাহত রেখেছে। এ ব্যাপারে ২০০২ সালে পেশকৃত আরব নিরাপত্তা ফর্মূলাও এই প্ল্যাটফর্মে রয়েছে। ওআইসির তত্ত্বাবধানে একাধিক প্রতিনিধি কনফারেন্স, পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় পর্যায়ে ডাকা সম্মেলন এবং আরো বিভিন্নি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আরব-ইসরাইল সমস্যার ভারসাম্যপূর্ণ সমাধানের ওপর জোর দেওয়া হয়েছে।

ওআইসির সেক্রেটারি জেনারেল আরো জানান, ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা ওআইসি বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ফিলিস্তিন ইস্যুতে আন্তর্জাতিক আইন, আন্তর্জাতিক পদক্ষেপসমূহ অনুসরণ, আরব শান্তি ফর্মূলা এবং দ্বি-রাষ্ট্র সমাধানের নীতিতে বিরোধ মীমাংসার ওপর জোর দিচ্ছে।

তিনি বলেন, ফিলিস্তিনি জাতির অধিকারের প্রশ্ন অনস্বীকার্য। ফিলিস্তিনের শরণার্থীদের অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া, ফিলিস্তিনি জনগণের নিজেদের সিদ্ধান্ত গ্রহণের অধিকার এবং ১৯৬৭ সালের অধীকৃত অঞ্চলসমূহে স্বাধীন ও সার্বভৌম ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা ফিলিস্তিনিদের দীর্ঘদিনের দাবি এবং অধিকার। কোনো অবস্থাতেই তা এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব নয়।

বিবৃতিতে ইসরাইল কর্তৃক ফিলিস্তিনের ভূমি জোরপূর্বক দখল, ইহুদি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা এবং ফিলিস্তিন ভূখণ্ডে ইসরাইলি দখলদারিত্বকে অন্যায় এবং অবৈধ আখ্যা দেওয়া হয়। ড. ইউসুফ বলেন, ওআইসি ফিলিস্তিনের ভূমির আইনগত এবং রাজনৈতিক অবস্থান ধ্বংস করে ইহুদিবাদী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দুই রাষ্ট্র সমাধানের বিলোপ মেনে নেবে না। সূত্র: আরব নিউজ ৷

জাগো প্রহরী/গালিব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য