মসজিদুল আকসায় আরব আমিরাতের নামাজ হারাম: ফিলিস্তিনের গ্র‍্যান্ড মুফতি


জাগো প্রহরী : সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইসরায়েলের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনের পরে পুরো মুসলিম বিশ্বে ব্যপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে মসজিদুল আকসায় আরব আমিরাতের নামাজ আদায় নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ফিলিস্তিনের গ্র‍্যান্ড মুফতি শায়খ মুহাম্মাদ হুসাইন। তিনি ফতোয়া জারি করেছেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতের জন্য মসজিদুল আকসায় নামাজ পড়া শারঈভাবে সম্পূর্ণ হারাম।

বৃহস্পতিবার তুরস্কের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম আনাদুলু এজেন্সির সূত্রে মিল্লাত টাইমস উর্দুর এক প্রতিবেদনে উল্লেখিত ফতোয়াটি প্রকাশ করা হয়। ফতোয়ায় আরো জানানো হয়, মসজিদুল আকসায় শুধু ওইসব মুসলমান নামাজ আদায় করতে পারেন যারা ইসলামি শরীয়াহ মান্য করেন; যারা ইসরায়েলের সঙ্গে বন্ধুত্ব স্থাপন করে পবিত্র এই মসজিদে নামাজ পড়বে, তাদের নামাজ শুদ্ধ হবেনা।

শায়খ মুহাম্মাদ হুসাইন আরও বলেন, যে মুসলমান আল আকসায় নামাজ আদায়ের আশা করে সে আন্তরিকভাবে ফিলিস্তিনিদের ভালবাসে এবং আল আকসার স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করে। আর এভাবেই একদিন মুসলমানদের প্রথম কিবলা আল আকসা দখলদার ইহুদিদের থেকে মুক্তিলাভ করবে।

তিনি বলেন, ইসরায়েলের সঙ্গে মিত্রতা তৈরিকারীরা আল কুদস (জেরুসালেম) ও আল আকসাকে শত্রুদের হাতে অর্পণের ষড়যন্ত্র করছে। জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী স্বীকৃতি দানকারী কিভাবে পূন্যময়ী এই নগরীর স্বাধীনতার কথা বলে?

শায়খ মুহাম্মাদ হুসাইনের দাবি, মসজিদুল আকসার একমাত্র পৃষ্ঠপোষক ও অবিভাবক মুসলমানরা; অবৈধ ইহুদিদের প্রথম কিবলার ওপর দখলদারি করার কোন অধিকার নেই। সূত্র: মিল্লাত টাইমস ৷

জাগো প্রহরী/গালিব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ