শেরপুরে ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বৃদ্ধি, কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্দি


জাগো প্রহরী : শেরপুরে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পানির বৃদ্ধি পেয়ে সদর উপজেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির  আরও অবনতি হয়েছে। শুক্রবার ২৪ ঘণ্টায় ব্রহ্মপুত্র নদের পানি ৩৮ সেন্টিমিটার বেড়েছে। শনিবার ২৪ ঘণ্টায় পানি বেড়েছে ৪ সেন্টিমিটার। আর বিকেল পর্যন্ত এক ঘণ্টায় পানি বেড়েছে ১ সেন্টিমিটার।

জেলার পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানিয়েছে, শনিবার রাতে পানি অনেকটা স্থিতিশীল হবে। গত তিন দিনে উপজেলার কামারেরচর, চরপক্ষমারী ও বলাইয়েরচর ইউনিয়নের অধিকাংশ পানি প্লাবিত হয়েছে। চরমোচারিয়া ও চরশেরপুর ইউনিয়নের বেশ কিছু গ্রামেও পানি ঢুকেছে। এসব এলাকার কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

শেরপুর-জামালপুর আঞ্চলিক সড়কের পোড়ার দোকান ও শিমুলতলীতে দুটি কজওয়েতে প্রবল বেগে পানি প্রবাহিত হওয়ায় আজও যান চলাচল বন্ধ আছে। ফলে শেরপুরের সাথে উত্তরাঞ্চলের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। শনিবার দুপর পর্যন্ত পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পানি কমবেশি বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং শেরপুর-জামালপুর সড়কের কজওয়ের পানির ব্যাপক স্রোত অব্যহত রয়েছে।

পাটের আবাদ ও আমন ধানের বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। পানির নিচে তলিয়ে গেছে সবজির আবাদ।

চরপক্ষীমারীর কুলুরচর ব্যাপারী পাড়া ও নতুন চরের তিনশতাধিক পরিবার জামালপুর শহর রক্ষা বাধে ও স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আশ্রয় নিয়েছে। এদিকে আজ দুপুরে জাতীয় সংসদের হুইপ ও স্থানীয় এমপি আতিউর রহমান আতিক চরাঞ্চলের বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেছেন।

 জাগো প্রহরী/এফআর

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ