বাড়তে পারে মুঠোফোনে কথা বলার খরচ


জাগো প্রহরী : মুঠোফোনে কথা বলায় খরচ বাড়তে পারে এ মাস থেকেই। কারণ, আগামী বাজেটে কথা বলার ওপর সম্পূরক শুল্ক বাড়ানো হতে পারে। ১১ জুন ২০২০–২১ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার কথা রয়েছে। যদি সম্পূরক শুল্ক বাড়ানো হয়, তবে তা ঘোষণার দিন থেকেই কার্যকর হবে।

বর্তমানে মুঠোফোনে কথা বলায় ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আছে। এটি ৫ শতাংশ বাড়িয়ে আগামী বাজেটে ১৫ শতাংশ করার প্রস্তাব করা হতে পারে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

এনবিআর কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, টেলিকম খাতসহ বেশ কিছু খাতে করোনায় খুব বেশি প্রভাব পড়েনি। এসব বিবেচনায় এই খাতে শুল্ক-কর কিছুটা বৃদ্ধির চিন্তা করা হচ্ছে।

এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, ভ্যাট বিভাগের সবচেয়ে বেশি শুল্ক-ভ্যাট আদায় করা তিনটি খাতের একটি মোবাইল অপারেটররা।

চলতি ২০১৯–২০ অর্থবছরের বাজেটে মোবাইল সিম বা রিম কার্ডের মাধ্যমে যেসব সেবা দেওয়া হয়, তার বিপরীতে সম্পূরক শুল্ক ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়। এতে মোবাইল ফোনে কথা বলা, এসএমএস পাঠানো এবং ডেটা ব্যবহারের খরচও বেড়ে যায়।

সব মিলিয়ে কথা বলা ও খুদে বার্তায় বর্তমানে ১৫ শতাংশ ভ্যাট, ১ শতাংশ সারচার্জ, ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ইত্যাদি মিলে মোট করভার ২৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ। এর মানে হলো, আপনি যদি ১০০ টাকা রিচার্জ করেন, তাহলে ২২ টাকার মতো যায় সরকারের কোষাগারে। নতুন করে শুল্ক আরোপ করা হলে তাতে সরকারের রাজস্ব আয় হয়তো বাড়বে, কিন্তু গ্রাহকের খরচও বেড়ে যাবে।

জাগো প্রহরী/গালিব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ