শীঘ্রই কোরবানির ঈদ ও হাট সম্পর্কে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা আসছে


জাগো প্রহরী : করোনা পরিস্থিতিতে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ সামনে রেখে প্রয়োজনীয় নতুন নির্দেশনা আসছে ধর্ম মন্ত্রণালয় এবং এর অধীন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কাছ থেকে। যথাযথ ধর্মীয় রীতি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের নামাজ আদায়, কোরবানি এবং পশুর হাট বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হবে। এ জন্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন আলেম-উলামা ও স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এর আগে একই পরিস্থিতিতে ঈদগাহ বা খোলা জায়গার পরিবর্তে মসজিদে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের নির্দেশনা দেওয়া হয়। ওই সময় স্বাস্থ্যবিধি মানাসহ ১৩ দফা নির্দেশনা দেয় ধর্ম মন্ত্রণালয়, যা ঈদুল আজহার ক্ষেত্রেও বলবৎ থাকতে পারে। তবে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর মৃত্যুতে ওই পদ খালি থাকায় নতুন সিদ্ধান্ত গ্রহণে কিছুটা দেরি হচ্ছে।

জানতে চাইলে ধর্মসচিব নুরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘কোরবানির ঈদের আরো এক মাস বাকি আছে। আল্লাহ তায়ালা চাইলে তো এর আগে করোনা পরিস্থিতি ভালো হয়েও যেতে পারে। তবে আমরা ঈদের আগে যথাসময়ে অবশ্যই একটি শরিয়তসম্মত নির্দেশনা জারি করব। তাতে আমাদের একটি প্রস্তুতি রয়েছে। এ ছাড়া এখনো কোনো মন্ত্রী আমাদের দপ্তরের দায়িত্বে নেই। এর কারণে একটু ধীরেসুস্থে কাজগুলো করতে হচ্ছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন এ ব্যাপারে তাদের প্রস্তুতি রাখছে।’

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক (ডিজি) আনিস মাহমুদ বলেন, ‘আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। কোরবানির ঈদ সামনে রেখে আগামী সপ্তাহে নতুন একটি নির্দেশনা জারি করা হতে পারে। এ জন্য আলেমদের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, এ বিষয়ে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে এখনো কোনো নির্দেশনা তাঁরা পাননি।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনাগুলোর মধ্যে আরো ছিল, মসজিদে ঈদের জামায়াতের সময় কার্পেট না বিছানো, নামাজের আগে মসজিদ জীবাণুমুক্ত করা, মুসল্লিদের জায়নামাজ নিয়ে আসা, মসজিদে ওজুর স্থানে সাবান/হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখা, মসজিদের প্রবেশপথে হ্যান্ড স্যানিটাইজার/হাত ধোয়ার ব্যবস্থা রাখা, নিজ নিজ বাসা থেকে ওজু করে মসজিদে আসা, ওজু করার সময় কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, অবশ্যই মাস্ক পরে মসজিদে আসা, মসজিদের জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার না করা, সামাজিক দূরত্ব মেনে কাতারে দাঁড়ানো, শিশু, বয়োবৃদ্ধ, অসুস্থ ও তাদের সেবায় নিয়োজিতদের জামাতে অংশগ্রহণ না করা, হাত না মেলানো ও কোলাকুলি না করা।

জাগো প্রহরী/গালিব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য