আপস করবে না ভারত, তবে কি যুদ্ধ আসন্ন?


জাগো প্রহরী : করোনা পরিস্থিতির মধ্যে টান টান উত্তেজনা ভারত ও চীন সীমান্তে। করোনার প্রকোপ চীন কাটিয়ে উঠলেও নাজেহাল ভারত। এরই মধ্যে আপস না করার কথা জানাল ভারত।

তবে সীমান্ত সমস্যা নিয়ে মতবিরোধ দূর করতে চীনের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাবে ভারত। আবার সার্বভৌমত্ব রক্ষার ক্ষেত্রে ভারত কোনও রকম আপসের পথে হাঁটবে না বলে জানানো হয়েছে। দু’দেশের উচ্চ-পর্যায়ের মধ্যে বৈঠকে সমঝোতা চীন লঙ্ঘন করেছে বলেও ভারতের অভিযোগ।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এক বিবৃতি জারি করে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় শান্তি ফেরানোর জন্য সেনা ও কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চালাচ্ছে ভারত-চীন। এর আগেও গত ৬ জুন দু’দেশের মধ্যে কমান্ডার পর্যায়ে বৈঠক হয়। দু’দেশের পক্ষ থেকেই শান্তি বজায় রাখার আশ্বাস দেওয়া হয়। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় উত্তেজনা কমানোর জন্য এর পরেও বেশ কয়েক দফায় বৈঠক হয়েছে।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দু’দেশের মধ্যে উচ্চ-পর্যায়ের বৈঠকে যে সমঝোতা হয়েছে, তা যদি চীন মেনে চলতো তাহলে মঙ্গলবার রাতে গালওয়ান উপত্যকায় যে রক্তক্ষয়ী ঘটনা ঘটেছে, তা এড়ানো সম্ভব হতো। ভারত প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার মধ্যেই তাদের যাবতীয় কর্মকাণ্ড সীমাবদ্ধ রেখেছে। আশা করছি, চীনও তাদের দিক থেকে এ নিয়ম মেনে চলবে।

এর পরই বেইজিংকে হুঁশিয়ারি দিয়ে নয়াদিল্লি জানিয়েছে, সীমান্তে শান্তি বজায় রাখার জন্য তারা যথাসাধ্য চেষ্টা করবে। মতবিরোধ দূর করার জন্য আলোচনাও চালিয়ে যাবে। তবে সার্বভৌমত্ব রক্ষার ক্ষেত্রে কোনও রকম আপসের পথে হাঁটবে না ভারত।

ভারতের গণমাধ্যমে আরও বলা হয়, গত সোমবার (১৫ জুন) রাতে গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় সেনার ওপর হামলা চালায় চীনা সেনা। ভারতীয় বাহিনীর প্রত্যাঘাতে পাঁচ চীনা সেনা নিহত হন।

অন্যদিকে, ওই সংঘর্ষে ভারতীয় বাহিনীর এক কর্নেল ও দুই জওয়ানেরও মৃত্যু হয়। সেনা সূত্রের খবর, পাথর, রড নিয়ে মারামারিতেই প্রাণহানি ঘটেছে।

 জাগো প্রহরী/গালিব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য