ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের দাপটে বিপর্যস্ত কলকাতা


জাগো প্রহরী : ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের দাপটে কলকাতা ধ্বংস হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তিনি বলেন, এ দৃশ্য কখনো দেখেনি কলকাতা। ঘণ্টায় ১৩০ কিমি বেগে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান শহরের বুক চিরে চলে গেল আর রেখে গেল ধ্বংসের চিহ্ন। প্রায় সারা শহরের বিদ্যুৎ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, রাস্তায় গাছের স্তূপ, বন্ধ হয়ে গেছে সব দোকানপাট।

বাহ্যিক এই রূপ যেমন অচেনা, তেমনি অচেনা এক ভয় গ্রাস করেছিল এই শহরকে। 'মনে হচ্ছিল, এই বোধহয় শেষ,' বললেন এক পুলিশ কর্মকর্তা।

যদিও রাত পর্যন্ত শহরে কোনো মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুধবার রাত ৯টার দিকে বলেন, এই ঝড়ের তাণ্ডবে রাজ্যে অন্তত ১০ থেকে ১২ জনের প্রাণহানির খবর এসেছে বলে জানিয়েছেন তিনি

তিনি আরো বললেন, ‘ধ্বংসস্তূপের ওপর দাঁড়িয়ে আছি।’ বুধবার দুপুর থেকেই ঝড়ের বেগ বাড়তে শুরু করে। কলকাতাতেই ১৩০ কিমি পেরিয়ে গিয়েছিল ঝড়ের গতি এবং উপকূলে এই গতি ছিল ১৭০ কিমির কাছাকাছি।

সারা দিন রাজ্য সরকারি সদর দপ্তরে কন্ট্রোল রুমে বসেছিলেন মমতা। দিন শেষে মমতা বলেন, দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জায়গা শেষ হয়ে গেছে। দুই ২৪ পরগণা, দুই মেদিনীপুরসহ একাধিক অংশে ধ্বংসলীলা চলেছে। 'সব রাস্তা বন্ধ হয়ে গেছে। সব ব্রিজ বন্ধ। ইলেকট্রিসিটি পুরো শেষ, পানির সংযোগ শেষ। কৃষি ক্ষেত্র সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত।'

তিনি বলেন, রাজ্যে তিনটি কঠিন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। প্রথমত করোনা, দ্বিতীয়ত পরিযায়ী শ্রমিক ও তৃতীয় হলো এই আম্ফান। এতটা ক্ষতি হবে, এমনটা আশা করেননি বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজনীতি না করে কেন্দ্রের কাছে সাহায্যের দাবিও জানান তিনি।

ক্ষয়ক্ষতির হিসেব করার জন্য আগামীকাল বেলা ৩টার সময় মিটিং ডেকেছেন মমতা।

জাগো প্রহরী/গালিব

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য