যুদ্ধ-মহামারীতে উভয় সংকটে আফগানিস্তান



জাগো প্রহরী : একদিকে করোনাভাইরাসের হানা, অন্যদিকে যুদ্ধের দামামা- ঠিক যেন উভয় সংকটে পড়েছে আফগানিস্তান। গত কয়েকদিন ধরে মহামারীর প্রকোপ আর সহিংসতার পরিমাণ দুটোই বাড়ছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে।

শুক্রবার ( ১ মে ) আফগান কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গত কয়েক সপ্তাহে বেশ কয়েকটি প্রদেশে হামলা চালিয়েছে তালিবান যোদ্ধারা। শুধু যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে হওয়া শান্তিচুক্তি ভঙ্গই নয়, করোনা মোকাবিলায় মানবিকতার খাতিরে সহিংসতা বন্ধে আন্তর্জাতিক সেবা সংস্থাগুলোর অনুরোধও উপেক্ষা করছে তারা।

দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় বলখ প্রদেশের জারি জেলার গভর্নর শামসুর রহমান রহমানি বলেন, সম্প্রতি তার এলাকায় তালিবান হামলায় আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর অন্তত ১৪ সদস্য নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছেন।

এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক কোনও মন্তব্য করেনি তালিবানরা। উজবেকিস্তানের সীমান্তবর্তী বলখ প্রদেশে এ পর্যন্ত অন্তত ১৭৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, মারা গেছেন ১০ জন।

এদিকে, আফগান বাহিনীর দাবি, তারা বৃহস্পতিবার রাতে পূর্বাঞ্চলীয় কুন্দুজ প্রদেশে বিমান হামলা চালিয়ে তালিবান কমান্ডার কারি মোমেনকে হত্যা করেছে।


এছাড়া, দক্ষিণাঞ্চলীয় লোগার প্রদেশের বারাকি বারাক জেলায় সামরিক অভিযান চালিয়ে বেশ কয়েকজন তালিবান সদস্যকে হত্যার কথা জানিয়েছে আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

এক বিবৃতিতে তারা জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে তালিবানদের হামলা প্রতিহত করতে গিয়ে তাদের অন্তত ১৫ সদস্যকে হত্যা, ছয়জনকে আহত ও বিপুল সংখ্যক অস্ত্র-গোলাবারুদ ধ্বংস করেছে জাতীয় প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বাহিনী।

এই সংঘর্ষে আফগান বাহিনীর অন্তত চার সদস্য নিহত ও আরও পাঁচজন আহত হয়েছেন বলেও জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

তবে তালিবান মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ দাবি করেছেন, গত রাতের সহিংসতায় তাদের ১০ জন ও আফগান বাহিনীর ১৪ সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন।

শুধু সহিংসতাই নয়, আফগানিস্তানে প্রাণহানি বাড়ছে মহামারিতেও। দেশটিতে এ পর্যন্ত অন্তত ৬৮ জন করোনায় মারা গেছেন, আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৩৩৫ জন।

তবে পর্যবেক্ষক সংস্থা ও বিশেষজ্ঞদের মতে, আফগানিস্তানে করোনায় আক্রান্তের প্রকৃত সংখ্যা সরকারি হিসাবের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি হতে পারে।

সূত্র: রয়টার্স

জাগো প্রহরী/ফাইয়াজ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য