আফগানে ক্ষমতা ভাগাভাগি চুক্তি আলোচনায় রাশিয়া, পাকিস্তান, ইরান এবং চীন


জাগো প্রহরী : আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট  আশরাফ গনি এবং ন্যাশনাল রিকনসিলেশনের হাই কাউন্সিলের নতুন চেয়ারম্যান আবদুল্লাহর মধ্যে যে চুক্তি হয়েছে তা দেশটির রাজনৈতিক সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করবে। আফগানিস্তানে সরাসরি শান্তি আলোচনা শুরু করতে সকল  বাধা দূর হবে। রাশিয়া, পাকিস্তান, ইরান এবং চীনের আফগানিস্তান সংক্রান্ত বিশেষ প্রতিনিধিরা এ আশাবাদ ব্যক্ত  করেছেন।

রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির প্রতিনিধি (আফগানিস্তান সংক্রান্ত) জামির কাবুলভ সোমবার ( ১৮ মে ) চীনের বিশেষ দূত লিউ জিয়ান, পাকিস্তানের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাফদার হায়াত এবং ইরানের বিশেষ দূত মোহাম্মদ তাহেরিয়ানফার্ডের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন। সে সময় তারা এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যত দ্রুত সম্ভব যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানদের মধ্যে চুক্তি বাস্তবায়নের গুরুত্ব এবং আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ বাহিনীর মধ্যে সরাসরি আলোচনার সূচনার উপর গুরুত্বারোপ করে আলোচনা করা হবে।

একটি যৌথ বিবৃতি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের সার্বভৌমত্ব, স্বাধীনতা এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতার প্রতি কূটনীতিকদের সমর্থন রয়েছে।

আফগানিস্তানের ভবিষ্যতের উন্নয়নে জনগণের সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধার কথা পুনরায় ব্যক্ত করেন তারা।
তারা 'আফগান-নেতৃত্বাধীন, আফগান-মালিকানাধীন' শান্তি ও পুনর্মিলন প্রক্রিয়া সমর্থন করার পাশাপাশি মতামত দিয়েছেন।

তারা মত দেন যে, অন্তর্ভুক্ত আফগানিস্তানের আলোচনাই আফগান জাতীয় পুনর্মিলনকে উপলব্ধি করার একমাত্র উপায়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সকল আফগান নৃগোষ্ঠী ও দলকে আহ্বান জানিয়ে তালেবানকে পরিস্থিতি প্রস্তুত করার সুযোগ নিয়ে কাজ করার আহ্বান জানাচ্ছে কূটনীতিকরা।

আরও যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আন্তঃআফগান আলোচনার সূচনা করতে আহ্বান জানান তারা।

সূত্র : এএনআই

জাগো প্রহরী/ফাইয়াজ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য