ভারতের সঙ্গে বিরোধপূর্ণ সীমান্তে টহল দিতে শুরু করেছে নেপালের নিরাপত্তা বাহিনী


জাগো প্রহরী : ভারত বিতর্কিত লিপুলেখ অঞ্চল দিয়ে একটি সংযোগ সড়ক উদ্বোধনের এক সপ্তাহের মাথায় সেখানে আর্মড পুলিশ ফোর্স (এপিএফ) মোতায়েন করেছে নেপাল। অঞ্চলটিকে নিজের বলে দাবি করছে কাঠমান্ডু।

এপিএফ সদর দফতরের ইন্সপেক্টর লিলি বাহাদুর চাঁদ ২৫ সদস্যের এই দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। দলটি ধরশুলা জেলার বিয়াস রুরাল মিউনিসিপ্যালিটি-১-এর ছাংড়ু অঞ্চলের গাগায় মোতায়েন করা হয়েছে।

সেখানে এপিএফের নতুন আউটপোস্ট উদ্বোধন করেন এআইজি নারায়ন বাবু থাপা।

বুধবার ( ২০ মে ) ওই আউটপোস্ট উদ্বোধনের পর থেকে এপিএফ সদস্যরা এলাকাটিতে টহল শুরু করেছেন।

এআইজি থাপা বলেন, নেপাল সেনাবাহিনীর এমআই-১৭ হেলিকপ্টারে করে সেনাদের ওই এলাকায় পাঠানো হয়।

এপিএফ জানায় যে ভারত উত্তরখান্ডের পিথোরাগড় থেকে চীন সীমান্ত সংযোগকারী ‘মানসরোবর লিংক রোড’ উদ্বোধনের পর নেপালের পশ্চিম সীমান্ত পাহারা দিতে এই আউটপোস্ট নির্মাণ করা হয়েছে। নেপাল বলছে সড়কটি নির্মাণের জন্য নেপালের ভূখণ্ড দখল করেছে ভারত।

তবে ভারত এই দাবি প্রত্যাখ্যান করে।

নেপালের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদীপ গিওয়ালী পার্লামেন্টে বলেছেন, একের পর এক সরকার ভারতের সঙ্গে নেপালের পশ্চিম সীমান্ত রক্ষায় ব্যর্থ হয়েছে। ফলে ভারতীয়রা সেখানে অনেকদিন ধরে অবস্থান করতে পেরেছে।

ছাংড়ু এলাকাটি সমুদ্র সমতল থেকে ৩০০০ থেকে ৫০০০ ফুট উঁচুতে এবং জনমানবহীন।

এদিকে ভারতের এই ভূখণ্ড দখলের বিরুদ্ধে নেপালে বিক্ষোভ চলছে। বিক্ষোভকারীরা নেপালি ভূখণ্ড লিপুলেখ রক্ষার জন্য ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কথা বলতে প্রধানমন্ত্রী কেপি ওলিকে চাপ দিচ্ছেন।

নেপালের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ইস্যু করা এক প্রেস নোটে বলা হয়েছে যে মহাকালী নদীর পূবদিকের ভূখণ্ড নেপালি সীমানার মধ্যে পড়েছে। সূত্র : দ্য ওয়্যার

জাগো প্রহরী/ফাইয়াজ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য