ইন্দো-প্যাসিফিকে চীনের তৎপরতা বাড়লেও ভারতের সঙ্গে জাপানের জঙ্গি বিমান মহড়া স্থগিত


জাগো প্রহরী : জাপানে অনুষ্ঠিতব্য জাপান-ভারত যৌথ জঙ্গি বিমান মহড়া স্থগিত করার ঘোষণা দিয়েছে টোকিও। গত বছর নভেম্বরে দুই দেশের পররাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীদের ২+২ বৈঠকের ফলাফলকে এগিয়ে নিতে এই মহড়া চালানোর সিদ্ধান্ত হয়েছিলো।

সোমবার ( ১১ মে ) জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, জাপান ও ভারতের যৌথ জঙ্গিবিমান মহড়া তাৎপর্যপূর্ণ হওয়ার পরও কোভিড-১৯ পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এটি স্থগিত করা হয়েছে। 

জাপানের সঙ্গে ভারতের এটা এ ধরনের চতুর্থ উদ্যোগ। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অষ্ট্রেলিয়ার সঙ্গে জঙ্গিবিমান মহড়ায় অংশ নেয় ভারত।

এরপরও দুই দেশ মসৃণ প্রতিরক্ষা দৃষ্টিভঙ্গী রক্ষা এবং অবাধ ও মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক সমুন্নত রাখতে দ্বিপাক্ষিক প্রতিরক্ষা সম্পর্ক জোরদার করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে।

গত সপ্তাহে জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী তারো কোনো টেলিফোনে তার ভারতীয় প্রতিপক্ষ রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে কথা বলেন।

জাপান মূলত ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে চীনের প্রভাব মোকাবেলার জন্য ভারতের সঙ্গে নিরাপত্তা সম্পর্ক জোরদার করতে আগ্রহী।

সাম্প্রতিক সময়ে চীনা নৌবাহিনী জলদস্যুতা মোকাবেলায় ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে টাস্ক ফোর্স মোতায়েনের কথা ঘোষণা করে।

তাছাড়া বিরাজমান মহামারীর মধ্যেও দক্ষিণ চীন সাগরে সামরিক তৎপরতা জোরদার করেছে চীন। তারা এই সাগরের বেশিরভাগ এলাকা দাবি করে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র বলছে চীন ওই এলাকায় চলাচলের স্বাধীনতা ব্যাহত করছে।

গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ চীন সাগরে যুদ্ধজাহাজ ইউএসএস মন্টগোমেরি ও রিপ্লেনিশমেন্ট শিপ ইউএসএনএস সিজার শ্যাভেজ মোতায়েন করে।

ভারতের সঙ্গে সীমান্ত ‘লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলে’ও তৎপরতা বাড়িয়েছে চীন। গত রোববার সিকিমের ও লাদাখ সেক্টরে দুই দেশের সেনাদের মধ্যে হাতাহাতিও হয়েছে।

সূত্র : স্পুটনিক

জাগো প্রহরী/ফাইয়াজ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য