নবী কটূক্তিকারীর ফাঁসির দাবিতে সন্ধ্যায় ফের উত্তাল ভোলার মনপুরা


জাগো প্রহরী : ফের উত্তাল হয়ে উঠেছে রাতের মনপুরা। ওসি সাখাওয়াত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের কথা বললেও সন্ধ্যার পর থেকে গ্রেফতারকৃত শ্রীরাম চন্দ্র দাস এর ফাঁসির দাবিতে দফায় দফায় বিক্ষোভ করছে সাধারণ মানুষ। এসময় তারা ফের কটূক্তিকারী হিন্দু যুবকের বাড়ি এলাকায় মিছিল করে ৷ 

এর আগে জুমার নামাজের পরে মহানবী (স.) কে কটূক্তি করায় মনপুরা রণক্ষেত্রে পরিনত হয়েছিল। দফায় দফায় সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত হানা স্টাটাস ফেইজবুকে শেয়ার করার অভিযোগে শ্রীরাম চন্দ্র দাস (৩৫) নামে এক যুবককে দুপুরেই আটক করেছে পুলিশ।

ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাতের প্রতিবাদে শুক্রবার জুমআর নামাজে পরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে স্থানীয় মুসল্লিরা, বিক্ষোভকারীরা কটূক্তিকারী হিন্দু যুবকের দুইটি দোকান ভাংচুর করেছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার জন্য রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। এসময় ১০জন আহত হয়ছে। আহতদের মধ্যে চিকিৎসা নেয়ারা হলেন, ইব্রাহীম (৩৮), করিম (২৫), ছাইফুল (৩৫), রাজিব (১৯), আলাউদ্দিন (৪৭), সানাউল্লাহ (৩৩)। এ ঘটনায় ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

মনপুরা থানার ওসি সাখাওয়াত পুরো মনপুরায় পুলিশের টহল বাড়িয়ে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রনে নিলেও সন্ধ্যার পর থেকে ফের বিক্ষোভ শুরু করে মুসল্লিরা এবং হিন্দু যুবকের ঘর লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়ে ৷ এতে পুরো মনপুরায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে ৷ হিন্দু সমপ্রদায়ের লোকজন চরম নিরাপত্তাহীনতায়  চরম আতংকে রয়েছেন । তাদের ভোলা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠিয়ে নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছেন ভোলার হিন্দু নেতারা ।

এ ঘটনায় প্রতিবাদ মিছিলে পুলিশের লাঠি চার্জ ও রাবার বুলেট নিক্ষেপের  নিন্দা ও প্রতিবাদ  জানিয়েছেন ভোলা জেলা মুসলিম ঐক্য পরিষদের সভাপতি,মাওলানা আব্দুর রহমান খান তালুকদার ও সাধারন সম্পাদক, আলহাজ্ব মাওলানা মোহাম্মদ  মোবাশ্বিরুল হক নাঈম। তারা এঘটনার সাথে প্রকৃত অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানান।

জাগো প্রহরী/ফাইয়াজ

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য