সৌদি, মিসর, ইন্দোনেশিয়া, জর্ডান ও ইরানের পর তুরস্কেও তারাবির জামাত স্থগিত


জাগো প্রহরী : সৌদি আরব, মিশর, ইন্দোনেশিয়া, জর্ডান ও ইরানের পর এবার রমজান মাসে মসজিদে তারাবির নামাজ স্থগিত করল তুরস্ক।

গত বুধবার (১৫ এপ্রিল) করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে তুরস্কের শীর্ষ ধর্মীয় সংস্থা এ আদেশ দিয়েছে। সেই সঙ্গে সংস্থাটি পবিত্র রমজান মাসেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছে।

এ বিষয়ে দেওয়া এক বিবৃতিতে তুরস্কের ধর্ম বিষয়ক অধিদপ্তর বলেছে, ‘আত্মীয়স্বজন, প্রতিবেশী এবং বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে ইফতার মাহফিলও এড়িয়ে চলতে হবে।’

তারা আরও জানিয়েছে, রমজান মাসে রোজা রাখা ফরজ। যা মহামারিজনিত কারণে পিছিয়ে দেওয়া যায় না। বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, সুস্থ মানুষের জন্য রোজা রাখতে কোনো সমস্যা নেই।

এর আগে মিশর, সৌদি আরব, ইন্দোনেশিয়া, জর্ডান ও ইরান মসজিদে জামাতে তারাবির নামাজ জামাতে আদায় স্থগিত করে। সবাইকে ঘরে তারাবির নামাজ আদায় করতে বলা হয়।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুসারে, ৬৫ হাজার ১১১ জন আক্রান্ত ও ১ হাজার ৪০৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির সরকার দেশজুড়ে লকডাউন ও মাস্ক বিতরণসহ এর বিস্তার রোধে বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

করোনাভাইরাস রোধে কয়েক হাজার কারাবন্দিকে ছেড়ে দিতে মঙ্গলবার একটি আইন পাস হয়েছে তুরস্কের পার্লামেন্টে। কিন্তু ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগানের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থানের পর ধরপাকড়ে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে আটকদের মুক্তির তালিকায় না রাখায় সমালোচনা হচ্ছে।

নতুন আইনে ৪৫ হাজার হাজার বন্দি অস্থায়ীভাবে মুক্তি পেতে পারেন। মে মাসের শেষ দিকে বিচার বিভাগের নিয়ন্ত্রণে এসব বন্দিকে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

জাগো প্রহরী/মাসউদ আইয়ুবী

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য