বঙ্গবন্ধুর খুনি মোসলেহ উদ্দিন ভারতে আটক!


জাগো প্রহরী : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অন্যতম খুনি মোসলেহ উদ্দিন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর চব্বিশ পরগনায় আটক হয়েছেন—এমন খবর দিয়েছে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা। গতকাল সোমবার পত্রিকার প্রতিবেদনে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে, ভারতের গোয়েন্দারা খুনি মোসলেহ উদ্দিনকে বাংলাদেশের গোয়েন্দাদের হাতে তুলে দিয়ে থাকতে পারেন। ভারত বা বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষের কেউ মোসলেহ উদ্দিন আটক হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেনি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘আমরা সরকারিভাবে বিষয়টি জানি না। আমি আমার অফিসকে বলেছি, এ বিষয়ে বিস্তারিত খবর নিয়ে আমাকে জানাতে।’ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এ বিষয়ে ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, কলকাতা ও নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ মিশন ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে। আটক হয়ে থাকলে বাংলাদেশ অবশ্যই তাঁকে ফেরত দিতে অনুরোধ জানাবে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানও বলেছেন, মোসলেহ উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে কি না সে বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

গোয়েন্দা সূত্রগুলোর বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, খুনি আব্দুল মাজেদের মতো মোসলেহ উদ্দিনও পরিচয় গোপন করে দীর্ঘদিন পশ্চিমবঙ্গে অবস্থান করছিলেন। বাংলাদেশি গোয়েন্দারা আব্দুল মাজেদকে জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য পেয়েছেন। এরপর ভারতের গোয়েন্দাদের সহায়তায় মোসলেহ উদ্দিনকে উত্তর চব্বিশ পরগনা থেকে আটক করা হয়েছে।

অন্য একটি সূত্রের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, আবদুল মাজেদ আটক হওয়ার পরপরই নিজের মৃত্যু সংবাদ ছড়িয়ে মোসলেহ উদ্দিন গা-ঢাকা দেন।
আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘ভারতের গোয়েন্দাদের একটি সূত্রের অবশ্য দাবি, লকডাউনের সময় এ দেশ থেকে মোসলেহ উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়ায় সমস্যা হতে পারে বলে ঢাকা বিষয়টি ভারতের গোয়েন্দাদের জানায়। ভারতীয় গোয়েন্দারা এই খুনিকে কার্যত তাড়িয়ে সীমান্তের কোনো একটি অরক্ষিত এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের গোয়েন্দাদের হাতে তুলে দিয়েছেন। তবে সরকারিভাবে কিছুই স্বীকার করা হয়নি।’

আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, উত্তর ২৪ পরগনার একটি উপশহরে ইউনানি চিকিৎসক সেজে ভাড়া থাকছিলেন মোসলেহ উদ্দিন।

বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় সেও ফাঁসির আসামি। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যাকারী দলের সামনের সারিতে ছিলেন মোসলেহ উদ্দিন। অনেকের দাবি, মোসলেহ উদ্দিনই গুলি করে হত্যা করেছিলেন শেখ মুজিবকে।

 জাগো প্রহরী/টিএস

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য